টাকা ছাড়া সব কিছু মুল্যহীন,এই ধরনা থেকে বেড়িয়ে আসুন

জীবনেটাকা ছাড়া কিছু হয় না,এই ধারনা অনেকের মনে,কিন্তু আমি  মান্ততে নারাজ,টাকা দিয়ে কিছু হয় না ,আবার অনেক কিছু হয়।আপনার টাকা নাই বলে,আপনি বসে থাকবেন এইটাই হল ভুল,যাদের টাকা আছে তারা সব কিছুই টাকা দিয়ে করে,কিন্তু যাদের নাই তারা কি করবে,তাদের হয়তে নগত টাকা নাই,কিন্তু একটা জিনিস আছে,সেটা হল চেষ্টা,একবার নয় হাজার বার করেন,দেখবেন একদিন আপনি আপনার লক্ষ্যে  ———–ছেন।একবার হয়নি,আবার চেষ্টা করুণ,না হলে আবার চেষ্টা করুণ

 

 

,নিজের আত্মা বিশ্বাস টা হারাবেন না।কারণ এইটাই আপনার বড় পুজি,যেটা কোটি টাকার চেয়ে মূল্য।

যদি সফল হতে চান, তা হলে আপনাকে অবশ্যই ধৈর্যশীল হতে হবে এবং কাজে মানসিক প্রশান্তি বজায় রাখতে হবে। ধৈর্যশীলতা আপনাকে নতুন কাজের আগ্রহ জন্ম দেবে এবং প্রশান্তি বজায় থাকলে আপনি কাজটিকে আপনার একঘেঁয়ে মনে হবে না। অনেক ক্ষেত্রে ব্যর্থতা আসতেই পারে, হাল ছাড়বেন না। ধৈর্য নিয়ে চেষ্টা করে যান। মনোবল নিয়ে কাজে নামুন। আমরা যদি মহাজ্ঞানীদের কথা ভাবি, নিউটনের কথাই ধরুন, যার গবেষণার সব কাগজ পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছিল। নিউটন হাল ছাড়েননি। এডিসন অসংখ্য চেষ্টার পর ইলেকট্রিক বাল্ব আবিষ্কার করতে পেরেছিলেন। ধৈর্যের বলেই তা সম্ভব হয়েছে। মানসিক প্রশান্তি শুধু সাফল্যলাভের জন্যই নয়; বরং সবক্ষেত্রেই প্রয়োজন। মানুষের মনের সুপ্ত শক্তিকে প্রকাশের জন্য প্রয়োজন হয় এ প্রশান্তির। মোট কথা, এটি হচ্ছে সাফল্যের অন্যতম পূর্বশর্ত। কাজেই মনকে প্রশান্ত রাখুন। মানসিক প্রশান্তি অর্জনের একটি অন্যতম উপায় হলো মেডিটেশন। তাই মেডিটেশন করুন,দেখবেন, মনকে কিছুটা হলেও শান্তি দিতে পারছেন। অনেক ক্ষেত্রে আমরা আজকের কাজ কালকের জন্য ফেলে রাখি। আমাদের টনক না নড়া পর্যন্ত এই কাজটি আমরা বারবার করি। কিন্তু সময় তো আর বসে থাকে না। আমাদের খেয়াল হতে হতে অনেক সময়ের অবমূল্যায়নের ফলে জীবনে নেমে আসে হতাশা আর জীবন সম্পর্কে অনীহা। আপনাকে মনে রাখতে হবে, সফলতার জন্য সময়ের সঠিক ব্যবহার করা প্রয়োজন। কারণ, সাফল্যের জন্য আপনাকে শিখতে হবে অনেক কিছু। সব কাজ সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে হলে সময়কে ভাগ করে নিন। সংকট মোকাবেলার জন্য এর মূল কারণ বা মূল চালিকা শক্তিগুলো সম্পর্কে ধারণা রাখাও জরুরি। যেমন,দাঁতে ব্যাথা দেখা দিলে এর প্রতিকারের সবচেয়ে ভাল উপায় হল ব্যাথার মূল কারণ উদঘাটন করে ওই কারণ দূর করার চেষ্টা করা। প্রথমে প্রতিরোধের প্রাথমিক ব্যবস্থা অনুযায়ী দাঁতে লেগে থাকা ময়লা দূর করতে হবে এবং ময়লা জমে থাকার ফলে সৃষ্ট গর্তগুলো ভরাট করতে হবে। কিন্তু দাঁতের ক্ষয় রোগ যদি স্নায়ু পর্যন্ত পৌঁছে যায় তাহলে ব্যথা দূর করার জন্য ক্ষয়কারী চালিকাশক্তিগুলোকে প্রতিহত করার পাশাপাশি দাঁতের সাথে স্নায়ুর সংযোগও ছিন্ন করতে হবে, আর তা না করলে দাঁত নষ্ট হবার পর মাড়িও নষ্ট হতে শুরু করবে। মহান আল্লাহর ওপর ভরসা করা ও আত্মবিশ্বাস, এ দুটি বিষয় সাংঘর্ষিক নয়। মহান আল্লাহর ওপর ভরসা করা বলতে হাত-পা গুটিয়ে ঘরে বসে থাকাকে বোঝায় না। তাওয়াক্কুল বা মহান আল্লাহর ওপর ভরসার অর্থ হল, যে কাজ যেভাবে করা উচিত সেভাবে সম্পন্ন করার পাশাপাশি আল্লাহর সাহায্য চাওয়া। অন্য কথায় তাওয়াক্কুল চেষ্টা প্রচেষ্টার পরিপূরক মাত্র, বিকল্প নয়। তদ্রুপ সমস্যা মোকাবেলার ক্ষেত্রেও এর প্রকৃতি ও নানা দিক সম্পর্কে ব্যাপক ধারণা অর্জন করে দৃঢ়তা নিয়ে প্রতিরোধে এগিয়ে যাওয়ার পরই আল্লাহর সাহায্য নেমে আসে।

শেখ বিল্লাল হোসাইন

ডিজিটাল মার্কেতে

এক্সটেন্ট আইটি ইন্সটিটিউট।
ফার্মভিউ সুপার মার্কেট (৬ষ্ঠ তলা) (লিফটের ৫ এর হাতের
বামদিকে) ফার্মগেট, তেজগাঁও, ঢাকা-১২১৫।
আমাদের ফেসবুক পেইজ।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY