ওয়েবসাইটের নির্মাণকৌশল বা site making strategy !

IMG_20151020_115738_671

Keyword research করা যখন শেষ হয়ে যাবে, তখন আপনার প্রধান কাজ হবে- আপনার ওয়েবসাইটের নির্মাণকৌশল বা site architecture কেমন হবে তা নির্ধারণ করা। এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনার ওয়েবসাইটের আর্কিটেকচার থেকেই সার্চ ইঞ্জিন নির্ধারণ করে, কোন Page টা গুরুত্বপূর্ণ এবং কোনটা না।
উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, আমাদের Home বা Front page এর সাথে অনেকগুলো পেজের লিংক থাকে। সার্চ ইঞ্জিন যখন দেখে যে, এই পেজের সাথে প্রায় সব পেজের লিঙ্ক আছে, তখন Search Engine (SE) মনে করে নিশ্চয়ই এই পেজটা গুরুত্বপূর্ণ।
Internal বা Inbound linking:
নিজের ওয়েবসাইটের একপেজের সাথে অন্যপেজের লিঙ্ককে Internal বা Inbound linking বলা হয়। Internal linking site structure এবং SEO এর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।
ধরুন, নিজের সাইটের ১০টা পেজ থেকে অন্য একটা page refer করা হল, আর ৩টা পেজ থেকে অন্য একটা page refer করা হল, তাহলে SE ধরেই নেয় যে, ১০টা inbound link যুক্ত পেজ টা অনেক বেশি Important। আমাদের উদাহরণএ ব্যবহার করা ওয়েবসাইটার জন্য আমরা গুরুত্বপূর্ণ Product page গুলোকে internal linking এর মাধ্যমে highlight করতে পারি।
Page Depth:
আবার, অনুরূপভাবে যে পেজটা যত বেশি গভীরে বা যে পেজে ঢুকতে যত বেশি click করতে হয় সেই পেজটা তত less important.

Making Quality link:
এই কারণে ওয়েবসাইটের Top Navigation, Side Bar and Footer links এর স্থানগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ, কারণ এসব স্থানে আপনি যে সকল লিঙ্ক ব্যবহার করবেন, সেই লিঙ্কগুলোতে এক ক্লিকেই প্রবেশ করা সম্ভব।
আবার সাধারনত অনেক ওয়েবসাইটের পেজের কন্টেন্ট পরিবর্তন হলেও এই স্থান গুলো একই থাকে, তাই এই স্থানগুলোতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ Category
and Topic গুলো দেয়া উচিৎ।
সঠিক Anchor text ব্যবহার করুন।
আমরা যে keyword গুলো research থেকে পেয়েছি। SE (search engine) সাধারণত Page এর উপরের দিকের লিঙ্কগুলোকে বেশি importance দেয়। যেমন: আপনার Top navigation এর লিঙ্ক Footer এর লিঙ্কস থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।
Link তৈরি করার সময় খেয়াল রাখুন, আপনি যেখানে Link তৈরি করতে চাচ্ছেন সেটা এই পেজের এর সাথে প্রাসঙ্গিক কিনা, যদি না হয় তবে প্রাসঙ্গিক পেজের সাথে লিঙ্ক করুন, না হলে SE আপনাকে penalty দিতে পারে।

 

@টেক টিপস বিডি

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY